মনোহরদীতে বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট, তিন নারী আহত

০৪ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৫ পিএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৫৭ পিএম


মনোহরদীতে বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট, তিন নারী আহত

মনোহরদী প্রতিনিধি:
নরসিংদীর মনোহরদীতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের বাড়ী-ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় তাদের মারধরে তিন নারী আহত হয়েছেন। শনিবার (০৩ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার চক বগাদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত আম্বিয়া বেগম (৫০) কে গুরুতর আহত অবস্থায় মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চক বগাদী গ্রামের ইমান আলী গংদের সাথে নূরুল হক এবং মাসুদ গংদের দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছে। এ নিয়ে আদালতে মামলা চলমান। বিষয়টি মিমাংসা করার উদ্দেশ্যে শনিবার স্থানীয়ভাবে সালিস বসে। আদালতে মামলা চলমান থাকার বিষয়টি সালিসে বসার পর প্রকাশ হয়। পরে সালিসানরা উভয় পক্ষকে আদালতের মাধ্যমে সমাধানের কথা বলে সমাপ্ত করে দেন।

এ সময় সালিসানদের উপস্থিতিতেই প্রতিপক্ষ নূরুল হক, শহিদুল্লাহ, মোহাম্মদ আলী, আব্দুস সাত্তার, আলম মিয়া, আব্দুল আউয়াল, আব্দুল আলী, আল আমীন, আব্দুর রশিদ দেশীয় অ¯্রসহ দলবল নিয়ে জোরপূর্বক ইমান আলীর বাঁশ-ঝাড় এবং বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কাটতে থাকে। এসময় ইমান আলীর পরিবারের লোকজন বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তাদের বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়। ঘটনার সময় চিৎকার দিলে ইমান আলীর স্ত্রী আম্বিয়া বেগমকে ব্যাপক মারধর করে হামলাকারীরা। এ সময় পুত্রবধূ শাহিনুর এবং ফুফু মেরছি বেগম এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারধর এবং শ্লীলতাহানী করা হয়। হামলা চলাকালীন পরিবারের লোকজন গুরুতর আহত আম্বিয়া বেগমকে উদ্ধার করে মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ সুযোগে হামলাকারীরা ইমান আলীর ঘরের তালা ভেঙ্গে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, মোবাইল ফোনসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুটে নেয়।

এ ঘটনায় ইমান আলী বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনকে আসামী করে মনোহরদী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।


মনোহরদী থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।