কোরবানীর ঈদে বাড়তি ঝামেলা এড়াতে যা জেনে রাখা প্রয়োজন

০৪ আগস্ট ২০১৯, ০২:২০ পিএম | আপডেট: ২১ আগস্ট ২০১৯, ০১:৩৬ এএম


কোরবানীর ঈদে বাড়তি ঝামেলা এড়াতে যা জেনে রাখা প্রয়োজন

টাইমস ডেস্ক:

কোরবানির ঈদের আর মাত্র বাকি সপ্তাহখানেক।ঈদকে ঘিরে আনন্দের পাশাপাশি বাড়তি কিছু দায়িত্বও বেড়ে যায় আমাদের।

পশু কেনা, কোরবানি করা, পশুর বর্জ্য, ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করাসহ নানা বাড়তি কাজ করতে হয়। কিছু বিষয় আগে থেকেই জানা থাকলে এসব কাজের ঝামেলা সহজেই এড়ানো সম্ভব হয়।

নরসিংদী টাইমস এর পাঠকদের জন্য তুলে ধরছি কিছু টিপস্। চলুন জেনে নেয়া যাক কোরবানি ঈদের বেশ কিছু দরকারি টিপস-

* কোরবানির হাটে পশু কিনতে যাওয়ার সময় পশু বিষয়ে অভিজ্ঞ কাউকে সঙ্গে নিতে পারেন, যাতে ভাল মানের পশু চিনে কিনতে পারেন।

* পশুতো কেনা হয়ে গেলো, এবার হাট থেকে পশু বাড়িতে আনার জন্য একজন শক্তসমর্থ লোকের প্রয়োজন। যিনি পশু বাড়িতে আনতে সাহায্য করবেন।

* হাটে যাওয়ার সময় অবশ্যই টাকা-পয়সা সাবধানে রাখবেন। এসময় পকেটমার, অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা থাকে।

* পশুর হাটে ভালো পোশাক না পড়ে যাওয়ায় ভালো। কারণ তাতে দাগ বা ময়লা লাগার আশঙ্কাই থাকে।

* তাড়াহুড়ো না করে হাতে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে পশুর হাটে যাওয়া উচিত। এতে ধীরে সুস্থে, দেখে শুনে পশু কিনতে পারবেন।

* খাজনার টাকা বাঁচাতে হাটের বাইরে থেকে পশু কিনবেন না। এতে চোরাই পশু কেনার আশঙ্কা থাকে।

* হাটের খাজনা ঠিকমতো পরিশোধ করুন।

* পশুর বয়স সম্পর্কে জেনে নিন। কেননা গরু ২ বছর এবং ছাগলের ন্যূনতম বয়স ৬ মাস না হলে কোরবানি আদায় হবে না।

* বাহ্যিকভাবে দেখতে সুস্থ-সবল, নীরোগ পশু কিনুন। ক্ষতিকর ওষধে মোটাতাজা করা বা রোগবালাই আছে কি না দেখে নিন।

* পশুর গায়ের চামড়ায় কাটা ক্ষত দেখে নিন। কান কাটা, শিং ভাঙা, লেজ কাটা, খুরের মধ্যে ক্ষত বা জিহ্বায় ঘা আছে কি না লক্ষ্য করুন।

* পশুর মুখের সামনে খাবার ধরলে যদি জিহ্বা দিয়ে টেনে নেয় এবং নাকের ওপরটা ভেজা ভেজা থাকে তাহলে বুঝতে হবে গরু সুস্থ। অসুস্থ পশু খাবার খেতে চায় না।

* গাভি বা বকনা গরু না কেনাই ভালো। নিতান্তই কিনতে হলে পশুচিকিৎসকের মাধ্যমে নিশ্চিত হতে হবে পশুটি গর্ভবতী কি না। গর্ভবতী পশু কোরবানি হয় না।

* গরুর কুঁজ মোটা টানটান হলে গরু সতেজ ও সুস্থ হয়।

* পশু কিনেই হাট থেকে পশুর জন্য খাবারও কিনে ফেলুন।

* হাট থেকে পশু আনার সময় পাটের দড়ি দিয়ে পশুকে ভালোভাবে বেঁধে আনুন। না হলে পশু গাড়ির শব্দে ভয় পেয়ে দৌড় দিতে পারে।

* কোরবানির আগেই কসাই ঠিক করে রাখুন, না হলে ঝামেলা পোহাতে হতে পারে।

* মাংস কেটে রাখার জন্য পরিষ্কার চাটাই সংগ্রহে রাখুন।

* কোরবানিতে ব্যবহারের জন্য ছুরি, দা, বঁটিতে ধার দিয়ে রাখুন আগেই।

* কোরবানির মাংস সমভাবে বণ্টনের জন্য আগে থেকে দাঁড়িপাল্লা জোগাড় করে রাখুন।

* মাটিতে পড়ে থাকা পশুর রক্তে ছিটানোর জন্য ব্লিচিং কিনে রাখুন।

* জবাই করার আগে পশুকে ভালোভাবে গোসল করাতে হবে এবং প্রচুর পরিমাণে পানি খাওয়াতে হবে। এতে চামড়া ছাড়ানো সহজ হবে।

* পশু মাটিতে শোয়ানোর সময় লক্ষ করতে হবে দেহে যেন কোনো প্রকার চোট না লাগে। এতে চামড়া থেঁতলে অথবা ছিড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

* চামড়া ছাড়ানোর জন্য মাথা বাঁকানো অর্থাৎ ইংরেজি ইউ অক্ষর আকারের ছুরি ব্যবহার করতে হবে।

* কোরবানির পশু ফাঁকা ও পরিষ্কার জায়গায় জবাই করুন।

* জবাই করার পর রক্ত, মলমূত্র, হাড়, বর্জ্য ইত্যাদি যেখানে-সেখানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখবেন না। এতে পরিবেশ দূষিত হবে।

* পশুর রক্ত ও বর্জ্য মাটির গর্তে পুঁতে ফেলুন।

* রক্ত ছড়িয়ে থাকা স্থানে পানি দিয়ে ধুয়ে ব্লিচিং পাউডার ছিটিয়ে দিন।

নিয়ম মেনে কোরবানি দিন। তাহলে পরিবেশ ভালো থাকার পাশাপাশি আপানার কাজও অনেকটাই সহজ হবে।


বিভাগ : জীবনযাপন