বর্তমান যুগে যার কম্পিটার জ্ঞান নাই তিনি মূর্খ: রায়পুরা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা

২২ জুন ২০১৯, ০৯:১৯ পিএম | আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০১৯, ১১:২৯ পিএম


বর্তমান যুগে যার কম্পিটার জ্ঞান নাই তিনি মূর্খ: রায়পুরা  উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা

হলধর দাস ॥
“আইসিটির মাধ্যমে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার প্রচলন প্রকল্প” তথা "শ্রেণি কে ডিজিটাল কাশ" প্রদর্শন বিষয়ক ৬দিন ব্যাপী ইনহাউজ প্রশিক্ষণ (প্রথম ব্যাচ) অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে গত ১৬ জুন থেকে রায়পুরার ১২ টি কেন্দ্রে একযোগে এ প্রশিক্ষণ শুরু হয়। ১২টি কেন্দ্রের ৩৩টি ভেন্যু-তে তিন ব্যাচে মোট ৬৬০ জন শিক্ষক এ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।
উপজেলার হাসনাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ে ছয়দিন ব্যাপী ইনহাউজ ট্রেনিং এর ১ম ও দ্বিতীয় ব্যাচের সমাপনী দিবসে গত ২১ জুন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রায়পুরা উপজেলার মাধ্যমিক শিা অফিসার নার্গিস সুলতানা।
এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাধ্যমিক শিা অফিসার নার্গিস সুলতানা শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগে বলা হতো “যার অক্ষর জ্ঞান নাই তিনি মুর্খ্য”। আর এখন বলা হয় বর্তমান যুগে “যার কম্পিটার জ্ঞান নাই তিনি মূর্খ”। আপনাদের সুবিধার্থে প্রশিক্ষণ এখন নিজ ঘরে নিয়ে আসা হয়েছে। যারা আগামীদিনে এদেশকে সামনের দিকে নিয়ে যাবার গুরুদায়িত্ব পালন করবে, তারা আজকে আপনাদের ছাত্র-ছাত্রী। শুধু আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্যই নয়, বিশ্বে আমাদের দেশের অবস্থানকে আরো সুন্দর স্থানে অধিষ্ঠিত করার লক্ষ্য নিয়ে সরকার ডিজিটাল ব্যবস্থার যাবতীয় প্রকল্প গ্রহণ করেছে। আপনাদের কোন সমস্যা থাকলে বলবেন। আমরা কারো কোন সমস্যা থাকলে সেটাকে সমাধান করার চেষ্টা করবো। ২০২৩ সালে ডিজিটাল কাশ ছাড়া কেউ কোন কাশ করতে পারবেন না। সুতরাং এখনই শিক্ষকদেরকে সে মোতাবেক প্রস্তুত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন হাসনাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক মোঃ আরিফুর রহমান। এ প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন বালুয়াকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক হলধর দাস, হাসনাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক শাহানাজ বেগম, দক্ষিণ মির্জানগর উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক নাহিদা আক্তার ও বাঘাইকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক বাসুদেব বৈদ্য।
মনিপুরা কেন্দ্রে প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন মনিপুরা উচ্চ বিদ্যালয়ের ট্রেড ইন্সট্রাক্টর মোখলেছুর রহমান ভূঞা, আব্দুল্লাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক (কম্পিউটার) জুলেখা আক্তার, ইউনুছ মিয়া বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোঃ জহিরুল ইসলাম এবং শব্দর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক (কৃষি) মোঃ মাহবুব আলম। সমাপনী দিনে ছিল মাল্টিমিডিয়া কাশ উপস্থাপনা।


বিভাগ : শিক্ষা