অন্য দলগুলো দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করেনি: প্রধানমন্ত্রী

১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৬:৩১ পিএম | আপডেট: ০৩ আগস্ট ২০২১, ১১:১১ পিএম


অন্য দলগুলো দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করেনি: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আওয়ামী লীগ মানুষের জন্য কাজ করেছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের অন্য দলগুলো মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করেনি। এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুবলীগ নেতাদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, জাতির পিতার আদর্শ ধারণ করে রাজনীতি করতে গিয়েও যারা লোভের বশবর্তী হয়ে অর্থ-সম্পদকে বড় করে দেখেছে, তারা কিন্তু টিকতে পারেনি।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ মিলনায়তনে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ১১ নভেম্বর যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী হলেও মহামারির কারণে আজ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

যুবলীগের উদ্দেশে শেখ হাসিনা আরও বলেন, শুধু বক্তৃতা-স্লোগান নয়, মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে কাজ করতে হবে। আমরা এমন একটি বাংলাদেশ গড়তে চাই, যেখানে একজন মানুষও ক্ষুধার্ত থাকবে না। দারিদ্র্য থাকবে না। যেটা ছিল জাতির পিতার স্বপ্ন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুবলীগ সব সময় অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছে। দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। দুর্যোগ আসবে, যাবে। নিজেদের শক্ত থাকতে হবে। মানুষের পাশে থাকতে হবে। মানুষকেও ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। করোনায় আমাদের জনগণ ঐক্যবদ্ধ ছিল। করোনায় যুবলীগ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। তারা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ, চিকিৎসা সহায়তা, অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে রোগীবহন, লাশ দাফন, কৃষকের ধানকাটা ও সবজি বাজারজাতকরণে সহায়তা এবং এই শীতে কম্বল বিতরণ করেছে। এ জন্য আমি তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

সরকারের উন্নয়নের বিবরণ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় ২১ বছর এরশাদ, জিয়া ও খালেদা জিয়া ছিলেন। প্রত্যেকে নিজেদের ভাগ্য উন্নয়নে ব্যস্ত ছিলেন। তারা মানুষের জন্য কিছু করেননি। আওয়ামী লীগই মানুষের জন্য কাজ করেছে, করছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া বলেছিলেন, আওয়ামী লীগ ১০০ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না। আমি না কী বিরোধী দলের নেতাও হতে পারব না। এখন আমরা ক্ষমতায় আছি বলে মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারছি। এ জন্য আমরা মানুষের কাছে কৃতজ্ঞ। তাদের জন্যই কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, অপপ্রচারে মনোযোগ দেয়া যাবে না। এত কিছু শুনলে সামনে এগোনো যায় না। যখন করোনার ভ্যাকসিন আসছে। নানাজন নানা কথা বলেছে, আমরা কিন্তু কোনো দিকে তাকাইনি। অ্যাডভান্স করে দিছি। যাতে অনুমোদন হলে আমরাই প্রথমে টিকা পাই, পেয়েছিও। ৪০ বছরের ওপর বয়সী ও মানুষের জন্য সবসময় কাজ করেন এমন লোকদের আগে টিকা দিচ্ছি।

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হাসান খান নিখিলের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন যুবলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, যুবলীগের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম প্রমুখ।


বিভাগ : বাংলাদেশ