আবারও গৃহযুদ্ধের দিকে ইথিওপিয়া

১৭ নভেম্বর ২০২০, ০১:৫০ পিএম | আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০১:৪৮ পিএম


আবারও গৃহযুদ্ধের দিকে ইথিওপিয়া

ডেস্ক রিপোর্টঃ

দীর্ঘ যুদ্ধের ক্ষত বহন করে চলা ইথিওপিয়া জড়িয়ে পড়তে যাচ্ছে আরেকটি গৃহযুদ্ধে। ইথিওপিয়ার ১০টি আধা-স্বায়ত্তশাসিত ফেডারেল রাজ্যের একটি টাইগ্রে। উত্তরাঞ্চলীয় এ রাজ্যটির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এ যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে প্রতিবেশী দেশ ইরিত্রিয়া, আর ঢেউ লেগেছে সুদানেও।

চলতি বছর সেপ্টেম্বরে টাইগ্রেতে আঞ্চলিক নির্বাচনের পর পরিস্থিতি জটিল হয়। করোনাভাইরাসের কারণে নির্বাচনে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল আবিই সরকার। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় টাইগ্রের নির্বাচনকে বেআইনি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার এবং আবিই টাইগ্রেতে বিমান হামলার ঘোষণা দেন।অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানায়, গত সোমবার মে কাদেরা শহরে শত শত মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। এর মধ্যেই গত শনিবার ইথিওপিয়ার পঞ্চিমাঞ্চলীয় বেনিশানজুল-গুমুজ এলাকায় যাত্রীবাহী বাসে বন্দুকধারীদের হামলায় ৩৪ জন নিহত হন।

এর আগেকয়েক দশকের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ১৯৯৩ সালে ইথিওপিয়া থেকে স্বাধীন হয়ে যায় ইরিত্রিয়া। যদিও ১৯৯৮ সালে ইথিওপিয়ার সঙ্গে ফের যুদ্ধে জড়ায় ইরিত্রিয়া। ২০০০ সালে সেই যুদ্ধ থামলেও উত্তেজনা জিইয়ে ছিল প্রায় দুই দশক। ২০১৮ সালে আবিই আহমেদ ক্ষমতায় আসার পর ইরিত্রিয়ার সঙ্গে যুদ্ধের অবসান ঘটিয়ে সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন।

২০১৮ সালে জনবিক্ষোভের পর হাইলিমারিয়াম দেশালেগন সরকারের পতন হলে ক্ষমতায় বসেন আবিই আহমেদ। এরপর থেকেই টাইগ্রের নেতারা অভিযোগ করতে থাকেন, বিভিন্ন মামলায় ফাঁসিয়ে, সরকারের বিভিন্ন পদ থেকে সরিয়ে তাদের ক্রমাগত কোণঠাসা করে ফেলেন আবিই সরকার। ফলে গত বছর আবিই সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নেয় টিপিএলএফ।


বিভাগ : বিশ্ব


এই বিভাগের আরও