শেখেরচর-বাবুরহাটে আগুনে পুড়লো ৩০ দোকান

০২ নভেম্বর ২০২১, ০৭:৪৬ পিএম | আপডেট: ১৬ মে ২০২২, ১০:৪১ এএম


শেখেরচর-বাবুরহাটে আগুনে পুড়লো ৩০ দোকান

নিজস্ব প্রতিবেদক:
দেশের অন্যতম পাইকারী কাপড়ের বাজার নরসিংদীর শেখেরচর-বাবুরহাটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় বাজারের নিমতলায় লুঙ্গিপট্টিতে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।


খবর পেয়ে প্রায় এক ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নেভাতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট। এতে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে কমবেশি ৩০টি দোকান পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের।


নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম ও ব্যবসায়ীরা জানান, বিকাল ৪টার দিকে বাজারের লুঙ্গিপট্ট্রির একটি কাপড়ের দোকানে আগুনের ধোয়া দেখতে পান স্থানীয়রা। এসময় ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিয়ে স্থানীয়রা পানি ও অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। এরইমধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পাওয়ার ১৫ মিনিটের মধ্যে মাধবদী ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট প্রথমে ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। পরে আগুনের ভয়াবহতা বুঝতে পেরে মাধবদী ও নরসিংদীর আরও ৭টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। প্রায় এক ঘন্টার চেষ্টায় বিকাল সোয়া ৫টায় ফায়ার সার্ভিসের মোট ৮টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কী পরিমান আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা জানাতে না পারলেও লুঙ্গি, শাড়ি, চাদর, থ্রিপিসসহ বিভিন্ন কাপড়ের কমপক্ষে ৩০টি দোকান পুড়ে গেছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের। ঠিক কী কারণে কোথা হতে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তাৎক্ষনিকভাবে তা জানাতে পারেননি ফায়ার সার্ভিস ও কাপড় ব্যবসায়ীরা।


জাকির টেক্সটাইলের মালিক অরুন মিয়া বলেন, আমার দোকানে শাড়ি ও থ্রিপিস বিক্রি করা হয়। ঠিক কোন দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তা আমরা বুঝতে পারছি না। আগুনের খবর পেয়ে এসে দেখি সব পুড়ে ছাই। সব দোকান মিলিয়ে মিলিয়ে কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে।


কাপড় ব্যবসায়ী দীপেন সাহা বলেন, শুক্র ও শনিবার ছাড়া সপ্তাহের বাকি দিনগুলোতে শেখেরচর-বাবুরহাটে বেচাকেনা বন্ধ থাকে। বন্ধের সময়ে বাজারের দোকানপাট বন্ধ থাকায় লোকজনও থাকেন কম। বিকালে আগুনের খবর পেয়ে বাজারের ব্যবসায়ীরা ছুটে আসেন এবং ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়া হয়। পরে এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নেভানো হয়। আগুনের ঘটনায় লুঙ্গি, শাড়ি, চাদর, থ্রিপিসসহ বিভিন্ন কাপড়ের কমপক্ষে ৩০টি দোকান পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তাৎক্ষনিকভাবে ক্ষতির আর্থিক পরিমান সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না।


নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আগুনের খবর পেয়ে নিকটবর্তী মাধবদী ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। কিছুক্ষনের মধ্যে মাধবদীসহ নরসিংদীর মোট ৮টি ইউনিট প্রায় এক ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। তাৎক্ষনিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও উৎস এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ঠিক করা যায়নি। আগুনে ২০ থেকে ৩০টি দোকান পুড়ে গেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।