মাধবদীতে মাটিচাপা দেয়া লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মা-বাবাসহ ৫ জন গ্রেপ্তার

১৩ মার্চ ২০২১, ০৪:৪২ পিএম | আপডেট: ২৩ জুলাই ২০২১, ০৯:৩৩ পিএম


মাধবদীতে মাটিচাপা দেয়া লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মা-বাবাসহ ৫ জন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক:
নরসিংদীর মাধবদীতে ছোট ভাই কর্তৃক সোহাগ মিয়া (২২) নামে বড় ভাইকে খুন করে লাশ মাটিচাপা দেয়ার ঘটনার মামলায় মা-বাবাসহ পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো- অভিযুক্ত ছোট ভাই জহিরুল (২২), তার স্ত্রী নওশীন আক্তার মীম, মা' মাসুদা বেগম, বাবা শাহানুল্লাহ ও লাশ গুম করার প্রধান সহযোগী আরমান মিয়া (২৩)। শনিবার (১৩ মার্চ) দুপুরে মাধবদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তানভীর আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গত ১ মার্চ রাত ৯টার দিকে সোহাগ মিয়াকে তার ছোট ভাই জহিরুল পিটিয়ে হত্যা করে। এরপর জহিরুলের মা মাসুদা বেগম ও বাবা শাহানুল্লাহসহ কয়েকজনের সহায়তায় বাড়ির পাশের ডোবায় মাটিচাপা দিয়ে লাশ গুম করা হয়। পরে মাধবদী থানা পুলিশ ৯৯৯ এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে গত মঙ্গলবার সকালে মহিষাশুড়া ইউনিয়নের দাইরের পাড় এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় অভিযুক্ত জহিরুলের স্ত্রী নওশীন আক্তার মীমকে আটক করা হয়। পরে মীমকে জিজ্ঞাসাবাদ করে হত্যার রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ। নওশীন আক্তার মীমের দেখানো তথ্যমতে সোহাগের লাশ বাড়ি থেকে ২৫ ফুট উত্তরের একটি ডোবার মাটির নীচ হতে উদ্ধার করা হয়। হত্যার কাজে ব্যবহৃত ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প, মাটি কাটার ব্যবহৃত দুটি কোদাল উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতর পক্ষে বাদি না থাকায় রাষ্ট্র পক্ষ থেকে মাধবদী থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈদুজ্জামান জানান, দাইরের পাড় এলাকায় ছোটভাই কর্তৃক বড় ভাই হত্যা মামলা রুজুর ৪৮ ঘন্টার মধ্যে প্রধান আসামী জহিরুল, লাশ গুম করার প্রধান সহযোগী একই এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে আরমান মিয়া (২৩) কে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হলে বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে তারা। এ ঘটনায় জড়িত নিহত সোহাগের মা’ মাসুদা ও বাবা শাহানুল্লাহকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরে বিজ্ঞ আদালত তাদের পাঁচজনকে কারাগারে প্রেরণ করেন।