বেলাবতে গণপিটুনিতে সন্দেহভাজন দুই ডাকাত নিহত, পরিবারের দাবি ডেকে এনে হত্যা

০৯ জুন ২০২১, ১২:১৫ এএম | আপডেট: ১৭ জুন ২০২১, ০৪:৩৭ এএম


বেলাবতে গণপিটুনিতে সন্দেহভাজন দুই ডাকাত নিহত, পরিবারের দাবি ডেকে এনে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নরসিংদীর বেলাবতে গণপিটুনিতে সন্দেহভাজন দুই ডাকাত নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার (৮ জুন) রাত ৮টায় বেলাব উপজেলার দড়িকান্দি-বড়চর সড়কে এ ঘটনা ঘটেছে। তবে নিহত একজনের পরিবারের দাবি পরিকল্পিতভাবে এ হত্যার ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

নিহতরা হলো- রায়পুরা উপজেলার লোচনপুর গ্রামের আতর মিয়ার ছেলে জুয়েল মিয়া (৩০) ও একই গ্রামের শহিদ উল্লাহর ছেলে নাদিম মিয়া (৩০)।

বেলাব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাফায়েত হোসেন পলাশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বেলাব উপজেলার দড়িকান্দি বাসস্ট্যান্ড থেকে রায়পুরা উপজেলার সীমান্তবর্তী বড়চরগামী সড়কে প্রায়ই ডাকাতি ও ছিনতাই সংঘটিত হয়। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাযোগে ৩/৪ জন ব্যক্তি ওই সড়কে ঢুকে। এসময় তাদের গাড়িতে দেশিয় অস্ত্রশস্ত্র দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে স্থানীয়দের আর্তচিৎকারে দড়িকান্দি ও বড়চর এলাকার লোকজন জড়ো হয়ে দুই দিক থেকে সন্দেহভাজন ডাকাতদের অবরুদ্ধ করার চেষ্টা করে। এসময় ডাকাতরা নম্বরবিহীন সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশা ফেলে রেখে পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয়রা দুইজনকে আটক করে গণপিটুনি দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। অন্যান্যরা পালিয়ে যায়। এসময় উত্তেজিত জনতা সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি ভাংচুর চালালে সিলিন্ডার থেকে আগুন লেগে পুড়ে যায়। নিহত দুইজনের মধ্যে জুয়েলের বিরুদ্ধে রায়পুরা থানায় মাদক মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত জুয়েলের বোন পরিষ্কার বেগম সাংবাদিকদের নিকট অভিযোগ করে বলেন, ফোন করে ডেকে এনে পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। কে বা কারা কী কারণে এ হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছে তাৎক্ষনিকভাবে তা জানাতে রাজি হননি তিনি।