বেলাবতে প্রতিপক্ষের হামলায় বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট

২৯ মার্চ ২০২১, ০৬:৪৩ পিএম | আপডেট: ০৪ আগস্ট ২০২১, ০৫:১০ পিএম


বেলাবতে প্রতিপক্ষের হামলায় বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট

বেলাব প্রতিনিধি:
নরসিংদীর বেলাবতে বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিপক্ষের হামলা ও অত্যাচার থেকে বাঁচতে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী পরিবারটি। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাজনাব ইউনিয়নের চন্দনপুর গ্রামে।


জানা যায়, তিন বছর আগে চন্দনপুর গ্রামের মাহবুল হাসান ডালিম প্রতিবেশি মোঃ আইনল হকের কাছ থেকে ১১ গন্ডা জমি ক্রয় করে উক্ত জমিতে ঘর তৈরি করে বসবাস করে আসছেন। সম্প্রতি জমি বিক্রেতা আইনুল হক, তার মা হেলেনা আক্তার ও বোন কামরুন্নাহার দাবী করছেন বিক্রিত জমি আইনল হকের মা ও বোন কামরুন্নাহারের। এসব ব্যাপার নিয়ে মাহবুব হাসান ডালিমের পরিবারের সাথে প্রায় সময়ই ঝগড়া হয় আইনল হকের পরিবারের।


মাহবুব হাসান ডালিম টাঙ্গাইলে চাকুরি করায় তার স্ত্রী ছাবিকুন্নাহার তার সন্তানদের নিয়ে ক্রয়কৃত জমির উপর নির্মিত দুচালা টিনের ঘরে বসবাস করেন। গত ২৫ মার্চ বৃহস্পতিবার রাতে আইনল হক হঠাৎ করেই ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে মাহবুব হাসান ডালিমের ক্রয়কৃত জমির উপর দেশীয় অস্ত্র সজ্জে সজ্জিত হয়ে হামলা চালিয়ে একটি দুচালা টিনের ঘর ভাংচুর করে। এসময় ঘরে থাকা ডালিমের স্ত্রী ছাবিকুন্নাহার ও তার ছেলে প্রতিবেশিদের সহযোগীতায় দৌড়ে পালিয়ে যায়। এসময় সন্ত্রাসীরা ঘরে কাউকে না পেয়ে রাম দা ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ডালিমের বসত ঘর ভাংচুর করে। চলে যাওয়ার সময় ঘরে থাকা নগদ ৬০ হাজার টাকা এক ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন, একটি কানের দুল নিয়ে পালিয়ে যায়। বর্তমানে আইনল হক ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে ডালিমের পরিবার অভিযোগ।

ডালিমের স্ত্রী ছাবিকুনন্নাহার বলেন, আমরা জমি ক্রয় করেছি ৩ বছর আগে। এতদিন তারা কিছু বলেনি। এখন তারা বলছেন এ জমি তাদের। তারা দুষ্ট ও খারাপ চরিত্রের লোক। আমার স্বামী টাঙ্গাইলে চাকুরি করে। আমি ও আমার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

মাহবুল হাসান ডালিম বলেন, আমি ১১ গন্ডা জমি ক্রয় করে বসত ঘর তৈরি করে বসবাস করে আসছি। যার সাব কাবলা দলিল আছে। অন্যায়ভাবে আইনল হক ও তার পরিবার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে আমার বাড়িঘর ভাংচুর করেছে। আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

অভিযুক্ত আইনল হক জানান,আমার বিরুদ্ধে যাবতীয় অভিযোগ মিথ্যা। আমি তাদের ঘর ভাংচুর করিনি।

অভিযোগটির তদন্তকারী কর্মকর্তা বেলাব থানার এসআই মোঃ আলাউদ্দীন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।