নরসিংদীতে এখনও জমেনি ঈদের কেনাকাটা

০৪ এপ্রিল ২০২৩, ০৭:৪০ পিএম | আপডেট: ২১ মে ২০২৪, ০৪:২৫ পিএম


নরসিংদীতে এখনও জমেনি ঈদের কেনাকাটা

কাউছার মাহমুদ:

নরসিংদীতে ঈদের পোশাক কেনাকাটা এখনও পুরোপুরি জমেনি। তবে ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে, বিপণিবিতানে ক্রেতাদের উপস্থিতিও বাড়ছে। গতবারের চেয়ে এবারিএকটু বেশি দামেই ঈদের পোশাক কিনতে হবে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। গত বছরের তুলনায় সব ধরনের পোশাকের দাম ১০-১৫ শতাংশ বেড়েছে।

 

শহরের ইনডেক্স প্লাজার ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড শপের মালিক আজিজুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন দোকান মালিক ও বিক্রেতা জানালেন, গত এক বছরে গ্যাস বিদ্যুৎসহ পোশাক তৈরির প্রয়োজনীয় উপকরণের দাম বেড়েছে। বিদ্যুতের দাম বেড়ে যাওয়ায় দোকানের খরচও বেড়েছে। ফলে সব দোকানিরা বাধ্য হয়ে পোশাকের দাম বাড়িয়েছেন। তবে কাপড় ভেদে দাম বেড়েছে ভিন্ন ভিন্ন। পোশাকের দাম বেড়ে যাওয়ায় কমেছে বিক্রির হারও। একইসাথে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়তির কারণে ঈদের কেনাকাটায় টান পড়ছে ক্রেতাদের। বাজেট অনুযায়ী কেনাকাটা করতে পারছেন না তারা। তবে আগামী সপ্তাহ থেকে বিক্রি বাড়বে বলে প্রত্যাশা ব্যবসায়ীদের।

 

ব্যবসায়ীরা আরও জানান, পবিত্র ঈদুল ফিতরে নতুন পোশাকের চাহিদাই সবচেয়ে বেশি থাকে। বিশেষ করে শবে বরাতের পর থেকে ঈদ বাজার জমে ওঠে। খুচরা পর্যায়ে রোজার শুরু থেকে বিক্রি বাড়ে, আর শেষ দিকে ব্যবসা জমজমাট হয়ে ওঠে। তবে এবার গত বছরের এই সময়ের তুলনায় বিক্রি কমেছে অনেকাংশে।

 

শহরের ঐতিহ্যবাহী কালিবাজারের কাপড়ের দোকান, আদি সুন্দরী ও সুন্দরী এক্সক্লুসিভ শাড়ি- থ্রিপিসের দোকান ঘুরে দেখা গেছে একই চিত্র। ক্রেতাদের খুব একটা আনাগোনা নেই।

 

মঙ্গলবার নরসিংদী শহরের ইনডেক্স প্লাজা, সদর রোডের রিচ ম্যান, বন্ড, মাইথ, ইজি ব্র্যান্ডের বিক্রয়কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, শুধু শীর্ষস্থানীয় দু-তিনটি প্রতিষ্ঠানের বিক্রয়কেন্দ্রেই ক্রেতাদের মোটামুটি ভিড়। অন্য প্রতিষ্ঠানের বিক্রয়কেন্দ্রে আশাব্যঞ্জক ক্রেতা নেই। আগামী সপ্তাহ থেকে ঈদের কেনাকাটা পুরোপুরি জমে উঠবে এমনটাই প্রত্যাশা বিক্রেতাদের।



এই বিভাগের আরও