যুক্তরাষ্ট্রে ফের হামলায় ৯ জন নিহত

০৪ আগস্ট ২০১৯, ০৬:২৬ পিএম | আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৭:৪৮ এএম


যুক্তরাষ্ট্রে ফের হামলায় ৯ জন নিহত
সংগৃহিত ছবি

বিদেশ ডেস্ক:

যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও অঙ্গরাজ্যে  এক বন্দুকধারীর হামলায় ৯ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

স্থানীয় সময় শনিবার (৩ আগস্ট) দিবাগত রাত ১টার দিকে রাজ্যের ডেটন এলাকায় একটি পানশালার বাইরে ওই হামলার ঘটনা ঘটে।

এর আগে ওই দিন সকালে টেক্সাসের এলপাসো শহরে ওয়ালমার্টের একটি দোকানে প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস নামে ২১ বছর বয়সী শ্বেতাঙ্গ এক বর্ণবাদী সন্ত্রাসীর এলোপাতাড়ি গুলিতে কমপক্ষে ২২ নিহত এবং আরও ২২ জন আহত হয়েছেন।

একই দিনে মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে ওহিও অঙ্গরাজ্যে পানশালায় ঢুকতে না পেরে এক ক্ষুব্ধ যুবক এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। এবং ঘটনাস্থলেই ৯ জন নিহত এবং আরও ১৬ জন আহত হন।

মার্কিন গণমাধ্যম জানিয়েছে, হামলাকারী প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস(২১) হিস্পানিক বিদ্বেষী ও একজন অভিবাসী । খবর সিএনএনের।

এ হামলার আগে এ বর্ণবাদী শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী অনলাইনে পোস্ট করা এক ‘ইশতেহারে’ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলাকে সমর্থন জানায় ।

এদিকে মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবিআই ন্যক্কারজনক ওই হত্যাযজ্ঞকে অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাস’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

মার্কিন গণমাধ্যম জানায়, হামলাকারী বিভিন্ন টুইটেও লাতিন আমেরিকান অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়াত। ‘ষড়যন্ত্র তত্ত্ব’ প্রচার করে এমন অনলাইন গ্রুপে অ্যাকটিভ ছিল সে।

প্যাট্রিকের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে করা পোস্টে কয়েকবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পেরও প্রশংসা করা হয়েছে।

এলপাসো থেকে প্রায় ১০৪৬ কিলোমিটার পূর্বে অ্যালেনের ডালাস নগরীতে তিনি বসবাস করেন। হামলা চালানোর উদ্দেশ্যে ৯ ঘণ্টা গাড়ি চালিয়ে এলপাসো শহরে এসেছিলেন ওই শেতাঙ্গ বর্ণবাদী।

যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকান সীমানা থেকে কিছু মাইল দূরে সিয়ালো ভিস্তা শপিংমলের কাছে ওয়ালমার্টের একটি দোকানে  ওই বন্দুকধারী হামলা চালায়।

সিসিটিভি ফুটেজে হামলাকারীর কে দেখা গেছে, কালো রংঙের টি-শার্ট পরে এ নৃশংস হামলা চালিয়েছেন । তার কানে ছিল প্রটেক্টর ও হাতে ছিল রাইফেল। মার্কিন সম্প্রচার মাধ্যম গুলোও ওই একই ছবি প্রচার করেছে।

আটক ২১ বছর বয়সী সন্ত্রাসী প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস ডালাস এলাকার অধিবাসী। শপিংমলে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, এলপাসোর ঘটনা অতিপীড়াদায়ক। এতে অনেকের প্রাণ ঝরেছে।

ক্ষমতায় আসার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কে শ্বেতাঙ্গদের দেশ বলে একটি ধারণা প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছেন, যেখানে অন্য জাতিগোষ্ঠীর লোকজন অনাহুত।

বিশ্লেষকরা মনে করে থাকেন তার গৃহীত নীতির ফলে উগ্র শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীরা অ-শ্বেতাঙ্গদের বিরুদ্ধে হামলা চালাতে উসকানি পাচ্ছেন ।


বিভাগ : বিশ্ব