১০ হাজার টাকার জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, স্বামী আটক

২৩ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৩৫ পিএম | আপডেট: ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৩৯ এএম


১০ হাজার টাকার জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, স্বামী আটক

পলাশ প্রতিনিধি:

নরসিংদীর পলাশে চাওয়া মাত্র ১০ হাজার টাকা না দেওয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার টেকপাড়ায় এই ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ১০ হাজার টাকা না দেওয়ার কারণে মোহাম্মদ নাছিম তার স্ত্রী ফারজানা (২৪) কে মারধর করার পর সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে বাড়ি এসে রাত ৮টার দিকে স্ত্রীকে চিকিৎসার জন্য ঘোড়াশাল রৌশন জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের ব্যবস্থাপক মোঃ মানিকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, রাত ৮টার দিকে আমাদের এখানে মৃত অবস্থায় নিয়ে আসা হয়েছিল। কপালের পাশে রক্তাক্ত জখম ও নাক দিয়ে রক্ত পড়ছিল।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ফারজানা নরসিংদী সরকারি কলেজে পড়ালেখার পাশাপাশি ঘোড়াশালে মাতৃভূমি নামে একটি এনজিওতে চাকরি করতেন। চার বছরের দাম্পত্য জীবনে তাদের দুই বছর বয়সের একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে। তার বাবার বাড়ি পাশের গ্রাম ফুলদির টেক। তার স্বামী মোহাম্মদ নাছিম ঘোড়াশালে বাংলাদেশ জুটমিলে সিকিউরিটির চাকরির পাশাপাশি কাপড়ের ক্ষুদ্র ব্যবসা করেন। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় ব্যবসায়িক কাজের জন্য স্ত্রীর নিকট ১০হাজার টাকা চেয়েছিলেন স্বামী। বার বার টাকা চেয়েও না পাওয়ার কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রীকে মারধর করেন। পারিবারিক কলহের জেরে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন বলেও কেউ কেউ ধারনা করছেন।  

ঘোড়াশাল পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক মাজেদুর রহমান বলেন, রাত ১০টায় খবর পেয়ে আমরা তার বাড়িতে গিয়ে দেখি খাটের মধ্যে মশারী টানানো অবস্থায় শুইয়ে রাখা হয়েছে। ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যার কোন আলামত পাইনি। গলায় কোন দাগের চিহ্ন ছিল না। মাথায় এবং কপালে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফারজানার স্বামী মোহাম্মদ নাছিমকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইলিয়াছের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এখনো পর্যন্ত এই ঘটনার কোন অভিযোগ পাইনি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে আমরা পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।