নরসিংদীতে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা না দেয়ায় বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণে যুবলীগ নেতার বাধা প্রদানের অভিযোগ

০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭:০৮ পিএম | আপডেট: ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০২:৩৫ এএম


নরসিংদীতে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা না দেয়ায় বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণে যুবলীগ নেতার বাধা প্রদানের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
নরসিংদী শহরে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা না দেয়ায় ১০ তলা বাণিজ্যিক কাম আবাসিক ভবন নির্মাণে বাধা দেয়া ও মালিককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। শহরের স্টেশন রোডে বৌয়াকুড়-বানিয়াছল এলাকায় নির্মাণাধীন কোঠাবাড়ি শপিং সেন্টারে এ ঘটনা ঘটেছে।


শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে কোঠাবাড়ি কনস্ট্রাকশন লি: এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরহাদ হোসেন এসব অভিযোগ করেন। অভিযুক্ত চাঁদা দাবীকারী শহর যুবলীগের সভাপতি দিদাদুর হক সরকার বিপ্লব। বিপ্লব নরসিংদী-১ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম হিরুর ভাতিজা।


সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, শহরের স্টেশন রোডে ২৮ শতাংশ জমিতে কোঠাবাড়ি কনস্ট্রাকশন লি: কর্তৃক ১০ তলা বাণিজ্যিক কাম আবাসিক ভবন নির্মাণের প্রস্তুতি নেয়। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি ভবনটির নির্মাণ কাজ শুরুর জন্য উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিলের জন্য প্যান্ডেল নির্মাণ করা হয়। এতে যুবলীগ নেতা ও এমপির ভাতিজা বিপ্লব তাকে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা পরিশোধ ও অন্যান্য দাবী দাওয়া পূরণ না করে নির্মাণ কাজ শুরু করা হচ্ছে বলে ক্ষিপ্ত হয়। এর জের ধরে বিপ্লব কোঠাবাড়ি কনস্ট্রাকশন লি: এর চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হান্নান মিয়াকে ফোনে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।


একই সঙ্গে কোম্পানীর চেয়ারম্যানকে তুলে নিয়ে মানসিক নির্যাতন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রজেক্টের ঠিকাদার নিয়োগ, তাদের ইচ্ছেমত দামে ইট, বালি, সিমেন্ট ও পাথর তাদের নিকট থেকে ক্রয় করতে হবে মর্মে সম্মতি আদায় করে নেয়।


পরে গত শুক্রবার (১ ফেব্রুয়ারি) কোঠাবাড়ি কনস্ট্রাকশন লি: এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরহাদ হোসেন ও কর্মকর্তারা প্রকল্প পরিদর্শনে গেলে বিপ্লব ও তার সহযোগীরা হামলা চালিয়ে ফরহাদকে মারধর করেন। এ হামলার ঘটনার প্রমান যাতে প্রকাশ না পায় সেজন্য সিসিটিভি ক্যামেরার ডিভাইস খুলে নেয়া হয়। রাতে তাঁরা জোরপূর্বক প্রজেক্টের ভেতরে নিজেদের ঠিকাদার দাবী করে তাদের কনস্ট্রাকশনের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিয়ে পাইলিংয়ের সরঞ্জাম রেখে দেয়।


পরে কোঠাবাড়ি কনস্ট্রাকশন লি: কর্তৃপক্ষ ঢাকায় গিয়ে এমপির অফিসে ও দ্বিতীয় দফায় নরসিংদীতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন ভূঁইয়া ও পৌর মেয়র কামরুজ্জামানের উপস্থিতিতে সংসদ সদস্য নজরুল ইসলামকে অভিযোগ জানালেও তিনি আমলে না নিয়ে উল্টো গালমন্দ করেন। এ অবস্থায় বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন ভবনটির মালিকপক্ষ।


কোঠাবাড়ি কনস্ট্রাকশন লি: এর চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হান্নান মিয়া বলেন, আমরা সরকারি বিধি মোতাবেক সকল নিয়ম মেনে সুনামের সাথে কোম্পানীর কার্যক্রম পরিচালনা করছি। এ অবস্থায় সংবাদ সম্মেলন থেকে সাবেক প্রতিমন্ত্রীর ভাতিজা বিপ্লবের চাঁদাবাজি ও অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতে প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি।


এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে শহর যুবলীগের সভাপতি দিদারুল হক সরকার বিপ্লব বলেন, কোঠাবাড়ীর জমি বরাদ্দসহ সকল ধরনের কর্মকা- আমি নিজে সমাধান করে দিয়েছি। অনুষ্ঠানের আয়োজনে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে রাখার কথা বললে কোম্পানির চেয়ারম্যান আমাদের সাথে খারাপ আচরণ করেন। এখন তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অপপ্রচার করছে।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে নরসিংদী-১ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনার অভিযোগ পেয়েছি এবং বিষয়টি দেখার আশ্বাস দেয়ার পরও ১২ ঘন্টা না পার হতেই এ সংবাদ সম্মেলন রহস্যজনক এবং বিশেষ মহল কর্তৃক আমার পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি কলুষিত করার অপচেষ্টা।



এই বিভাগের আরও