মাধবদীতে বেগম মুশতারী শফী’র মাগফেরাত কামনায় দোয়া

২৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:১৮ পিএম | আপডেট: ০৯ মে ২০২২, ১০:১৭ এএম


মাধবদীতে বেগম মুশতারী শফী’র মাগফেরাত কামনায় দোয়া

মুহাম্মদ মুছা মিয়া:
নরসিংদীর মাধবদীতে শহীদ জায়া, স্বাধীন বাংলা বেতারের শব্দ সৈনিক বেগম মুশতারী শফী’র আত্মার মাগফেরাত কামনায় কোরআন খতম, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। নুরালাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খাদেমুল ইসলাম ফয়সালের আয়োজনে মাধবদী নওপাড়া জজ ভূঞা মাদরাসায় বাদ জুমা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মুশতারী শফী নরসিংদী সদর আসনের সংসদ সদস্য লে. কর্ণেল (অব:) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হিরু (বীর প্রতীক) এমপির শাশুড়ি।

অনুষ্ঠানে কোরআন খতম শেষে বেগম মুশতারী শফী’র বীরত্ব গাথা জীবন নিয়ে আলোচনা করেন নুরালাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও নুরালাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক খাদেমুল ইসলাম ফয়সাল। পরে দোয়া পরিচালনা করেন পৌলানপুর ইসলামিয়া ফাযিল মাদরাসার প্রভাষক হাফেজ মাওলানা আবুল কাশেম। দোয়া শেষে মাদরাসার ছাত্রদের মধ্যে খাবার পরিবেশন করা হয়। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন নওপাড়া জজ ভূঞা হাফিজিয়া মাদরাসার মুহতামীম হাফেজ মাওলানা হারুন অর রশিদ, হাফেজ মাওলানা হাবিবুল্লাহ, হাফেজ মাওলানা রমজান আলী, সাংবাদিক মুহাম্মদ মুছা মিয়াসহ মাদরাসার শিক্ষক, ছাত্রসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

মুশতারী শফী গত ২০ ডিসেম্বর ৮৪ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন। বেগম রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত মুশতারী নারীনেত্রী ও শব্দ সৈনিক। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ৭ এপ্রিল তার স্বামী চিকিৎসক মোহাম্মদ শফী ও ছোট ভাই এহসানুল হক আনসারীকে হত্যা করে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে শব্দসৈনিক হিসেবে কাজ করেছেন বেগম মুশতারী। মুক্তিযুদ্ধে অনন্য ভূমিকার জন্য ২০১৬ সালে শহীদজায়া মুশতারী শফীকে ফেলোশিপ দেয় বাংলা একাডেমি। ২০২০ সালে পেয়েছেন বেগম রোকেয়া পদক।
বাংলাদেশ ঘাতক দালাল নির্মূল আন্দোলনের একজন অন্যতম সংগঠক তিনি। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গ্রন্থ 'মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রামের নারী', 'চিঠি', 'জাহানারা ইমামকে' এবং 'স্বাধীনতা আমার রক্তঝরা দিন' মুশতারী শফীর উল্লেখযোগ্য রচনা।