মুখোমুখি দাড় করানো হলো নবাব সিরাজউদ্দৌলা এবং মীর জাফরকে

০৪ মার্চ ২০২১, ০৫:২৯ পিএম | আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৪ এএম


মুখোমুখি দাড় করানো হলো নবাব সিরাজউদ্দৌলা এবং মীর জাফরকে

রাকিবুল ইসলাম:

মঞ্চে ওঠল ইতিহাস নির্ভর নাটক "ইতিহাসের অগ্নিসন্তান।" বুধবার (৩মার্চ) সন্ধ্যা ৭. ৪০ মিনিটে নরসিংদী জেলা শিল্পকলা একাডেমির মূল মঞ্চে জেলা শিল্পকলা একাডেমি নাট্যকলা বিভাগের পরিবেশনায় এই নাটকটির মঞ্চায়ন হয়।

স্থানীয় নাট্যকার শাহ্ আলমের লেখা পান্ডুলিপিতে নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির নাট্য প্রশিক্ষক জহিরুল ইসলাম মৃধা। ৪০ মিনিট দৈর্ঘ্যের এই নাটকটিতে অভিনয় করেছেন ৮ জন মঞ্চাভিনেতা, তাছাড়াও সেট ডিজাইন, আলোক প্রক্ষেপন ও আবহ সংগীতে কাজ করছেন আরও তিনজন। এছাড়াও নাটকটির মূল গঠন নিয়ে আলাদা আলাদা করে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার এন্ড পারফরমেন্স স্টাডিজের প্রভাষক মাঝহারুল তোকদার বাঁধন, বাঁধনহারা থিয়েটার স্কুল এর নাট্য নির্দেশক কামরুজ্জামান তাপু।

নির্দেশক ও নাট্যকারের সাথে কথা বলে জানা যায়, ইতিহাসে স্থান করে নেয়া বিভিন্ন ইতিবাচক ও নেতিবাচক চরিত্র রয়েছে আমাদের। নাটকে তাদের মৃত্যুর পর তাদেরকে আবার তুলে আনা হয়েছে। মুখোমুখি দাড় করানো হয়েছে নবাব সিরাজউদ্দৌলা এবং মীর জাফর আলী খানকে। দাড় করানো হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং খন্দকার মোশতাককে। তেমনি করে ওঠে এসেছে আজাদসহ ইতিহাসের বিভিন্ন চরিত্র।

কথা হয় নির্দেশক জহিরুল ইসলাম মৃধার সঙ্গে। তিনি বলেন, নাটকে ইতিহাসের চরিত্রগুলোকে তুলে এনেছি নতুন করে। এখানে মীর জাফর আছেন, নবাব সিরাজ আছেন, শেখ মুজিব, খন্দকার মোশতাক, আজাদ সবাই এসেছেন। মৃত্যুর পর আলোচনা করেছেন তাদের ভুল নিয়ে, উপলব্ধি নিয়ে। আশা করি নাটকটি দেখে সবাই নতুন কিছু শিখতে পারবে।

নাট্যকার শাহ্ আলম মিয়া বলেন, আমাদের ইতিহাস থেকে হারিয়ে যাওয়া কিংবা মানুষের মনে স্থান করে নেয়া বেশ কিছু চরিত্র রয়েছে। এগুলোকে সামনে দাড় করালে কেমন হয়? এই চিন্তা থেকেই নাটকটি লিখা। তাছাড়া নাটকের বইয়ের ও মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে, বিষয়টি আমার কাছে ভালো লাগার।

তার আগে একই মঞ্চে নাটকটের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কমল কুমার ঘোষের সভাপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন।

তাছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম (পিপিএম), জেলা চেয়ারম্যান আবদুল মতিন ভূঞা, নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ্য প্রফেসর গোলাম মোস্তাফা মিয়া, প্রফেসর মোহাম্মদ আলী, জেলা কালচারাল অফিসার শায়লা খাতুন, নরসিংদী জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুল মোতালিব পাঠান, নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাখন দাস প্রমুখ।


বিভাগ : বিনোদন