পেঁয়াজ আমদানিতে এলসি মার্জিন ৯ শতাংশ রাখাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশ

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:০২ পিএম | আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১:৫০ পিএম


পেঁয়াজ আমদানিতে এলসি মার্জিন ৯ শতাংশ রাখাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের  নির্দেশ
ফাইল ছবি

অর্থনীতি ডেস্ক:

পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানিতে ঋণের সুদের হার সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ রাখতে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশে ব্যাংক। পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখার স্বার্থে নতুন নির্দেশনা ‘অবিলম্বে’ কার্যকর হবে এবং ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারে রান্নার উপকরণের দাম বাড়ার পরে স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে ব্যাংক পেঁয়াজ আমদানির জন্য ব্যাংকগুলোকে এলসির ক্ষেত্রে ৯ শতাংশ হারে সুদ রাখার নির্দেশ দেয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ক্রেডিট কার্ড ব্যতীত সকল ঋণের সুদের হার সীমাবদ্ধ করার পর নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানির জন্য এলসি খোলার ক্ষেত্রে ৯ শতাংশ মার্জিন নির্ধারন করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এই হার কার্যকর করা হয়েছে ২ এপ্রিল থেকে। এই সুদের হার ভোজ্যতেল, ছোলা, মসুর, মশলা, ফল ও চিনি আমদানির ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।

গত সোমবার ভারত আকস্মিকভাবে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেয়ার পর গতবছরের মতই লাগামহীন হয়ে উঠতে শুরু করেছে বাংলাদেশের পেঁয়াজের বাজার। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন বাজারে দেশি পেঁয়াজের দাম রাতারাতি প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে। দাম আরও বাড়ার শঙ্কায় মানুষও প্রয়োজনের অতিরিক্ত পেঁয়াজ কিনতে শুরু করেছে। একদিনের ব্যবধানে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজের দাম ৬০ টাকা থেকে বেড়ে ৯০ বা ১০০ টাকা হয়েছে। আর ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে।

হুট করে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধে উদ্বেগ জানিয়ে ফের তা চালু করতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।


বিভাগ : অর্থনীতি


এই বিভাগের আরও