ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে এক নারীর ৭ বছরের কারাদণ্ড

০৫ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:১৭ পিএম | আপডেট: ২৩ জুলাই ২০২১, ১১:১১ পিএম


ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে এক নারীর ৭ বছরের কারাদণ্ড

জয়পুরহাট প্রতিনিধি:

ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে এক নারীকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৫ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন জয়পুরহাটের আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত ওই নারীর নাম নন্দ রাণী মালী (৩৫)। নন্দ রাণী মালী জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের জিতেন চন্দ্র মালীর কন্যা।

মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরে জয়পুরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক জেলা জজ মো. রুস্তম আলী এই রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের সরকারি বিশেষ কৌঁসুলি ফিরোজা চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের নন্দ রাণী মালী ২০১৪ সালের ২১ এপ্রিল রাতে ধর্ষণের অভিযোগ এনে একই গ্রামের আবুল হায়াতের বিরুদ্ধে ২২ এপ্রিল কালাই থানায় মামলা করেন। মামলার পর পুলিশ তদন্ত করে ঘটনাটি মিথ্যা বলে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। এতে নন্দ রাণী মালী নারাজি দিলে আদালত তা আমলে নেয়। মঙ্গলবার মামলাটির সাক্ষীর তারিখ ছিল। নন্দ রাণী আদালতে এসে মামলাটি মিথ্যা বলে সাক্ষী দিলে আদালতের বিচারক মিথ্যা মামলা করার দায়ে তাকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দেন। পরে আদালতের নির্দেশে নন্দ রাণীকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়, আর মামলার আসামিকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের সরকারি বিশেষ কৌঁসুলি ফিরোজা চৌধুরী। আর আসামি পক্ষের কৌঁসুলি ছিলেন কাজী রাব্বিউল হাসান মোনেম।


বিভাগ : বাংলাদেশ