করোনা ছড়িয়েছে মার্কিন সেনারা এমন দাবির পর ক্ষেপেছে যুক্তরাষ্ট্র

১৪ মার্চ ২০২০, ০৬:৩৬ পিএম | আপডেট: ০৩ আগস্ট ২০২১, ০৮:২৯ এএম


করোনা ছড়িয়েছে মার্কিন সেনারা এমন দাবির পর ক্ষেপেছে যুক্তরাষ্ট্র
ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

'করোনা ছড়িয়েছে মার্কিন সেনারা' চীনা মুখপাত্রের এমন দাবির পর বেশ ক্ষেপেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রে চীনের রাষ্ট্রদূত সুই তিয়ানকাইকে ডেকে পাঠিয়েছে হোয়াইট হাউস। কী কারণে এই পরিস্থিতিতে বেইজিংয়ের তরফে এমন মন্তব্য করা হল তার জবাব চাওয়া হবে।

হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিশ্বজুড়ে চলা এই মহামারিতে চীনের যে সমালোচনা হচ্ছে, তার মুখ অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে চাইছে তারা। এই ধরনের ষড়যন্ত্রমূলক কথা বলা খুবই ভয়ঙ্কর। আমরা চীন সরকারকে স্পষ্ট জানিয়ে দিতে চাই, এই ধরনের কথা আমরা বরদাস্ত করব না। চীনের জনগণের জন্যও এটা ভাল হবে না।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বিস্ফোরক এক টুইট বারতা পোস্ট করেন। সেখানে তিনি দাবি করেন, মার্কিন সেনাদের থেকেই করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছিল উহানে। সেখান থেকে সংক্রমণ ছড়ায় চীনের মূল ভূখণ্ডে। ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, গত বছর অক্টোবরে উহানে আয়োজিত সপ্তম মিলিটারি ওয়ার্ল্ড গেমে যোগ দিয়েছিলেন আমেরিকার অন্তত ৩০০ জন সেনা অ্যাথলেট। তখনই তাঁদের মধ্যে কয়েকজন ফ্লু-তে আক্রান্ত হন। পরে কয়েকজনের মৃত্যুও ঘটে। তখন বলা হয়েছিল নিছক জ্বর বা সংক্রামক ব্যধিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে সেনাদের। পরে জানা যায়, তাঁরা সকলেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন।

চীনের এমন বিস্ফোরক দাবির পরেই হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে বিশ্বজুড়ে। মার্কিন সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)-এর ডিরেক্টর রবার্ট রেডফিল্ড অবশ্য স্বীকার করেছেন, মার্কিন সেনাদের রক্তে মারণ ভাইরাসের জীবাণু মিলেছিল এটা ঠিক, তবে তাঁদের থেকেই যে ভাইরাস উহানে ছড়িয়েছিল সেটা একেবারেই ঠিক নয়। চীনের দাবি পুরোপুরি অস্বীকার করেন তিনি।

এদিকে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বিস্ফোরক এমন দাবির সেই ভিডিও এখন সমস্ত চীনা ওয়েবসাইটে ভাইরাল হয়ে গেছে। চীনারা এখন বলছেন, নাক ঘুরিয়ে হলেও আমেরিকা মানতে বাধ্য হচ্ছে যে, তাদের সেনাদের থেকেই করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে। সাহস থাকলে আমেরিকার গোটা বিশ্বের সামনে জোর দিয়ে এটা স্বীকার করা উচিত।

উহানে এমন মারণ ভাইরাস কোথা থেকে এলো সেটা নিয়ে বিশ্বজুড়ে নানা গুজব তথ্য ছড়িয়েছে। ইজরায়েলি মাইক্রোবায়োলজিস্টরা আগেই দাবি করেছিলেন সিঙ্গেল-স্ট্র্যান্ডেড এই আরএনএ ভাইরাসকে তৈরি করা হয়েছে মারণাস্ত্র হিসেবেই। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের ছোবলে শত শত প্রাণহানী ঘটানো সম্ভব। উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির বিএসএল-৪ ল্যাবোরটরিতে অতি গোপনে এই জৈব রাসায়নিক মারণাস্ত্র তৈরির কাজ চলছিল দীর্ঘ সময় ধরেই। হয় সেখান থেকেই ভাইরাস কোনভাবে বাইরে চলে গেছে, অথবা ইচ্ছাকৃতভাবেই সংক্রমণ ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিশ্বজুড়ে প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন ( হু ) একে বিশ্বজুড়ে মহামারীর আখ্যা দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে চীনের তরফে এই ধরনের অবিবেচনা প্রসুত মন্তব্যে স্বভাবতই ক্ষুব্ধ ওয়াশিংটন। তাই চীনের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠালেন তাঁরা। এবার চীনের তরফে কী জবাব দেওয়া হয় সেটাই এখন দেখার। (সূত্র- সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।)


বিভাগ : বিশ্ব