অভিবাসীদের নিয়ে ট্রাম্পের মনোভাব আদিম প্রকৃতির

০২ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:০৫ পিএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩২ পিএম


অভিবাসীদের নিয়ে ট্রাম্পের মনোভাব আদিম প্রকৃতির

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

শুধু মানব সভ্যতার জন্য হুমকিই নন, মানুষের প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গিও ভয়াবহরকম। বিশেষ করে অভিবাসীদের বিষয়ে তার কথাবার্তা কিংবা আচরণ রীতিমত পৈশাচিক। মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) এক বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ সীমান্ত সুরক্ষিত রাখার ব্যাপারে আলোচনা করতে গিয়ে ট্রাম্পের এমন কাণ্ড সবাইকে হতবাক করেছে।

বৈঠকে সহায়তাকারীরা বিশ্বের প্রভাবশালী এই প্রেসিডেন্টকে দক্ষিণ সীমান্ত সুরক্ষিত রাখার বিষয় তুলে ধরলে ট্রাম্প জনসম্মুখে সৈন্যদের অবৈধ নির্দেশ দিয়ে বসেন। তিনি বলেন, অভিবাসীরা যদি অনুপ্রবেশের সময় পাথর নিক্ষেপ করে তখন সৈন্যরা যেন তাদের ওপর গুলিবর্ষণ করে। তবে ট্রাম্পের কর্মীরা বিষয়টিকে অবৈধ বললে তিনি এমন সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন।

তবে দ্বিতীয় দফায় নির্দেশনা পরিবর্তন করে ট্রাম্প বলেন, সৈন্যরা যেন অভিবাসীদের পায়ে গুলি করে। তবে এ নির্দেশনাও আরেকটি অবৈধ সিদ্ধান্ত বলে মনে করছেন অনেকেই। ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকা একটি সূত্র অভিবাসীদের পায়ে গুলি করার কথোপকথনের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তবে ঘটনা এখানেই শেষ নয়। অভিবাসীদের নিয়ে ট্রাম্পের মনোভাব যে আদিম প্রকৃতির তার প্রমাণও পাওয়া গেছে। ট্রাম্প প্রায়ই বিষাক্ত সাপ বা হিংস্র কুমিরে ভরাট করা নর্দমা দিয়ে মজবুত সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করার মনোভাব প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে আনুমানিক ব্যয়ের হিসাবও চেয়েছিলেন। এমনকি মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট সীমানা প্রাচীরটি বিদ্যুতায়িত করে তার ওপরে স্পাইক বসাতে চান। যা কিনা টপকে আসতে চাওয়া মানুষের মাংস ছিদ্র করতে সক্ষম হবে।


বিভাগ : বিশ্ব