রায়পুরার চাঁনপুরে প্রতারণা মামলায় আ’লীগ নেতা বাবুল গ্রেফতার

২৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৬:৪৩ পিএম | আপডেট: ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ০৩:১৯ পিএম


রায়পুরার চাঁনপুরে প্রতারণা মামলায় আ’লীগ নেতা বাবুল গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চল চাঁনপুর ইউনিয়নে বিদ্যুৎ সংযোগের নামে গ্রাহকদের নিকট থেকে প্রতারনা করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে বাবুল মিয়া (৫০) নামে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গ্রেফতারকৃত বাবুল চাঁনপুর ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের মৃত মহব্বত আলীর ছেলে ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।


শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর রায়পুরা জোনাল অফিসের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (এজিএম) হাবিবুর রহমানের দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।
প্রতারণা ছাড়াও উক্ত বাবুলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কার্যকলাপের ব্যাপক অভিযোগ এলাকাবাসীর।

মামলার বিবরণ, পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বাবুল মিয়া চাঁনপুর ইউনিয়নের মোহিনীপুর গ্রামে পল্লী বিদ্যুতের নতুন মিটার সংযোগ ও লাইন নির্মাণ করিয়ে দেয়ার কথা বলে বিদ্যুৎ অফিসের নাম ভাঙ্গিয়ে গ্রামের নিরীহ লোকজনের কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা আদায় করে আত্মসাৎ করেন। টাকা আদায়ের এসব অভিযোগ এলাকাবাসী কর্তৃক পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ অবগত হলে রায়পুরা থানায় একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করা হয়। পরে উক্ত মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পল্লী বিদ্যুতের মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করায় স্থানীয়দের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে।

প্রতারণা ছাড়াও বাবুলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, জমি দখল, ধর্ষণ, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, অস্ত্র প্রদর্শন করে ভয়ভীতি দেখানোসহ নানা অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগ এলাকাবাসীর। কৌশলে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের পদ নিয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠা সন্ত্রাসী বাবুলের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না।

সরেজমিন গেলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকাবাসী জানান, বাবুল উক্ত এলাকায় মাদক ব্যবসা, কুমারী মেয়েদের ধর্ষণ, রাতের আধারে জোরপূর্বক ঘরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষণ, মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, অন্যের জমি দখল, অস্ত্র প্রদর্শন ও গরুচুরিসহ এমন কোন অপকর্ম নেই যা বাবুল করেনি। তার অত্যাচারে গ্রামবাসী অতিষ্ট হলেও তার ভয়ে কেউ প্রতিবাদ বা মামলা করার সাহস পায় না।
এছাড়াও বাবুল উপজেলার বালুয়াকান্দি-কালিকাপুর নদীপথে সেতু নির্মাণের নামে এলাকাবাসীর কাছ থেকে সাবেক মন্ত্রী ও স্থানীয় সাংসদ রাজিউদ্দিন আহম্মেদ রাজুর নাম ভাঙ্গিয়ে ১০ লাখ টাকা চাঁদা উঠিয়ে আত্মসাৎ করে। বাবুলের নানা দুর্নীতি ও অপকর্মের প্রতিবাদ করায় মোহিনীপুর গ্রামের বাসিন্দা বর্তমানে ঢাকায় বসবাসকারী কামাল মাহমুদ নামে এক তাঁতীলীগ নেতাকে হত্যার হুমকি দেয় সে। এ ব্যাপারে গত ২৭ জানুয়ারী ঢাকার খিলগাঁও থানায় তার বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরী করেন কামাল মাহমুদ। বিগত সময়ে একাধিক হত্যাসহ নানা অপকর্মের ঘটনায় বাবুলের বিরুদ্ধে মামলা হলেও প্রভাব বিস্তার করে এসব মামলা থেকে পার পেয়ে গেছে সে।

এ ব্যাপারে চাঁনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। তিনি বলেন, আপনারা অন্য কারও কাছ থেকে খবর নেন।

যোগাযোগ করা হলে রায়পুরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফজাল হোসাইন বলেন, বাবুল আগে ঢাকায় থাকতো, এখন গ্রামে থাকে। সে সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোকই, তবে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। আপনারা এলাকায় গিয়ে তার বিষয়ে খোঁজ খবর নিতে পারেন।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদির বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের একটি প্রতারণা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া আর কোন অভিযোগ আমরা পাইনি, পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।



এই বিভাগের আরও