নরসিংদীর ৫ টি সংসদীয় আসনে ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে

৩০ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:০৮ পিএম | আপডেট: ২৩ মার্চ ২০১৯, ১২:৪২ পিএম


নরসিংদীর ৫ টি সংসদীয় আসনে ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
একটি কেন্দ্রে নির্বাচনী সহিংসতায় একজন নিহত ছাড়া অনেকটা শান্তিপূর্ণভাবে নরসিংদীর ৫ টি সংসদীয় আসনে ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে। রবিবার সকাল ৮ থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত জেলার ৫ টি আসনের ৬৩২ টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ করা হয়।
আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের দাবি, একাদশ সংসদ নির্বাচনটি হয়েছে অবাধ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের উন্নয়নের পক্ষে মানুষের গণজোয়ার হয়েছে। আর এদিকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট হলেও নরসিংদী-১ আসনে বিএনপি দাবি করছে ব্যাপক অনিয়মের। বাকি আসনগুলোতে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।
নরসিংদী-১ আসনে অনিয়মের অভিযোগ এনে পুণঃভোট গ্রহনের দাবি জানিয়েছে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী কারাবন্দি খায়রুল কবির খোকনের স্ত্রী শিরীন সুলতানা ও তার প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট আবদুল বাতেন। রবিবার দুপুর ২ দিকে শহরের চিনিশপুর এলাকায় জেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান।
সম্মেলনে শিরীন সুলতানা বলেন, ‘আমিসহ আমার কোন লোকজন ভোট দিতে পারেনি। আমরা সারারাত সজাগ থেকে সংবাদ পেয়েছি প্রশাসন ও প্রিসাইডিং অফিসারদের সহযোগীতায় আওয়ামী লীগের লোকজন রাতেই ৫০ শতাংশ ভোট মেরে ফেলেছে। তাও আমরা মনে করেছিলাম যেহেতু ভোট কেন্দ্রে কিছু লোকজন আসবে তাদের ভোট দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। কিন্তু তাঁরা সেটাও করেনি। ভোট শুরু হওয়ার আধাঘন্টার মধ্যেই তাঁরা আমাদের সকল নির্বাচনী ও পোলিং এজেন্ট বের করে দিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মারে। তাই আমরা নরসিংদী-১ আসনে পুণঃভোট গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।’
নরসিংদী-১ (সদর) আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আসলে দেশের মানুষ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। তাই তারা মিথ্যাচার করছে। এমন সৌহার্দ্য ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন নরসিংদীর ইতিহাসে কখনো হয়নি। মানুষ উন্নয়নের ও সমৃদ্ধির পক্ষে তাঁর ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। আওয়ামী লীগ গত দশ বছরে নরসিংদীর মানুষের প্রত্যাশা পূরন করেছে। তাই তারা নৌকার প্রতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থাশীল। ’

 



এই বিভাগের আরও